Making passport is now easy if you have this app on your mobile But it will take so much money
WhatsApp Group Join Now

কোনো কাজে যদি আপনি দেশের বাইরে যেতে চান বা পড়াশোনা করার জন্য যদি দেশের বাইরে যেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার একটা আইডেন্টিটি প্রুফ লাগে, সেটা হলো পাসপোর্ট (Passport)।

কিন্তু পাসপোর্ট বানাতে গেলে প্রচুর ঝক্কি ঝামেলা পোহাতে হয়।‌ এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা ছোটাছুটি করতে হয়। কিন্তু আর ছোটাছুটি করতে হবে না, পাসপোর্ট বানানো নিয়ে আর এতটুকু চিন্তা করতে হবে না। কারণ এখন আপনি ঘরে বসে খুব সহজেই পাসপোর্ট বানাতে পারবেন। আপনার হাতের কাছে শুধু যদি স্মার্ট ফোন থাকে,তাহলেই এটি সম্ভব।

হ্যাঁ ঘরে বসে স্মার্ট ফোনে একটি অ্যাপ ডাউনলোড করে, সেই অ্যাপে পাসপোর্টের জন্য প্রয়োজনীয় নথিপত্র জমা দিতে হবে। অ্যাপটির নাম হলো, Digilocker।

পাসপোর্ট অফিসে অ্যাপয়েন্টমেন্টের সময় কোন মানুষ যদি দরকারি নথিপত্র সাথে করে নিয়ে যেতে ভুলে যান, সে ক্ষেত্রেও এই অ্যাপ সাহায্য করবে। এই অ্যাপের মাধ্যমে যাবতীয় নথিপত্র যাচাই করতে পারবেন আবেদনকারী।

এই Digilocker আসলে একটি সরকারি প্ল্যাটফর্ম, যা নথি যাচাইয়ের জন্য‌ই ব্যবহৃত হয়। এই DigiLocker আসলে ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রকের তৈরি করা একটি ডিজিটাল ওয়ালেট পরিষেবা।

এই অ্যাপের সাহায্যে একজন ব্যবহারকারী নিরাপদে ড্রাইভিং লাইসেন্স, গাড়ির রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট এবং মার্কশিটের মতো সরকারী নথি সংরক্ষণ ও অ্যাক্সেস করতে পারেন, এছাড়া অনলাইন আবেদন জমা দিতে আধারের নথিও ব্যবহার করতে পারবে।

WhatsApp Group Join Now

এইবার বিদেশমন্ত্রকের বিবৃতি অনুযায়ী, একজন পাসপোর্ট আবেদনকারী তাঁদের নথিপত্র DigiLocker-এ আপলোড করে রাখতে পারেন, এ ক্ষেত্রে আবেদন প্রক্রিয়া চলাকালীন তাদের আর আসল কপি আনতে হবে না। এক্ষেত্রে পাসপোর্ট আবেদন প্রক্রিয়ার সময় যেমন বাঁচবে,তেমনি কাগজপত্র নিয়ে দৌড়ঝাঁপ ও করতে হবে না।

নতুন পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে গেলে কী কী করতে হবে?

১) প্রথমেই পাসপোর্ট আবেদনকারীকে DigiLocker ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় সমস্ত নথি আপলোড করতে হবে।

২) এরপর আবেদনকারী অফিসিয়াল ওয়েবসাইট- www.passportindia.gov.in তে অনলাইনে গিয়ে তাঁদের পাসপোর্টের আবেদন জমা দিতে পারবেন।

আরো পড়ুনঃ ৫ অক্টোবর থেকে বন্ধ এই পরিষেবা, স্টেট ব্যাঙ্ক (SBI) গ্রাহকদের জন্য খারাপ খবর

পাসপোর্টের জন্য কীভাবে ভেরিফিকেশন হবে?

পাসপোর্ট অফিসে গিয়েই DigiLocker অ্যাপ ব্যবহার করবেন আবেদন কারী, এরপর আবেদনকারীর ফোনে একটি ওটিপি আসবে, যার ফলে প্রয়োজনীয় নথিপত্র সব যাচাই হয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আবেদনকারী সমস্ত নথি জমা দেওয়া এবং যাচাই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর ১৫ থেকে ১ মাস পর্যন্ত সময় লাগবে পাসপোর্ট তৈরি হতে, পাসপোর্ট তৈরি হলে আবেদনকারীর বাড়িতে সেটা পৌঁছে যাবে।

এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো,সাধারণ পাসপোর্ট হলে ফি লাগবে ১৫০০ টাকা তবে কিছু কিছু ক্ষেত্রে পৃষ্ঠা সংখ্যা বেশি হলে ২ হাজার টাকা‌ও ফি লাগে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *